প্রাণী প্রেমের নামে আমাদের হত্যা করা হয়েছে - মলি (২০১৭ - ১১ জুন, ২০২০) এবং হুলো

গত মে মাসে (২০২০) এর শেষের দিক থেকে কি মানসিক চাপের মধ্য দিয়ে আমাকে যেতে হয়েছে, এবং এখনও হচ্ছে...

ফেব্রুয়ারি মাসে আমি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েছিলাম। সেই সময়ই আমাদের বাসায় যিনি কাজ করতেন, তার ছেলের একটি সমস্যার কারণে তাকে দেশে যেতে হয়। এরপর লকডাউন এর কারণে তিনি আর ফিরে আসতে পারছিলেন না। আমার মা সিবিজি রুগী। আমার বড় বোন লন্ডনে থাকেন। তিনি সিদ্ধান্ত নিলেন এই অবস্থায় মা আমার খালার বাসায় থাকলেই ভালো হয়।  

আমার দুটি পোষা বেড়ালের মধ্যে হুলো এবং অপরটির নাম ছিলো মলি। একা বাসায়  অসুস্থ অবস্থায় আমি ওদের দেখাশোনা করতে পারছিলাম না। করনা কালীন একা বাড়িতে অসুস্থা অবস্থায় আমার প্রচন্ড প্যানিক ও হচ্ছিলো। আমি মোটামুটি নিশ্চিত ছিলাম যে আমাদের বাসায় যিনি কাজ করতেন, তিনি আর জীবিত ফিরে আসবেন না। রাস্তায় রাস্তায় লাশ পড়ে থাকবে, দুর্ভিক্ষ হবে, ব্যাংক দেউলিয়া হয়ে যাবে, মানুষ তখন ঘরে ঘরে ধুকে ডাকাতি করবে। এমন একটা ধারণা অনেকেরই হয়েছিলো। প্যানিক থেকে প্রায় আমার নাক থেকে রক্ত পড়ত। দুশ্চিন্তা থেকে পেটে ব্যথা প্রচন্ড বেড়ে গিয়েছিলো। বেশী টেনশান হতো হুলো মলিকে নিয়ে। আমি ওদের ঠিক মতন দেখাশোনা করতে পারছিলাম না, ওরা যদি অসুস্থ হয়ে পড়ে তাহলে কি হবে? আমার কিছু একটা হলে ওদের কি হবে? আমিও মোটামুটি নিশ্চিত ছিলাম যে আমিও বাঁচব না। 

একদিন তারা কেউ একজন বমি করেছিলো। আমি উঠতে পারছিলাম না, ঠিক করলাম ব্যথা একটু কমলে উঠে ক্লিন করবো। উঠতে একটু দেরী হয়ে গিয়েছিলো, গিয়ে দেখি তারা বোমি খেয়ে ফেলেছে। এটা দেখে আমার প্রচন্ড খারাপ লাগা শুরু করে। ওদের কোন ব্যবস্থা না করলে ওরা মারাই যাবে। এই টেনশান আমি আর নিতে পারছিলাম না।   

এই অবস্থায় আমি কুকুর-বিড়াল লালন-পালনকারী বিভিন্ন গ্রুপে আমার বেড়াল দুটোকে নিয়ে সাহায্য করার ব্যাপারে ফেইসবুকে পোস্ট দিতে থাকি । এই ব্যাপারে আমি “কেয়ার ফর পজ”, ডাক্তার সিয়ামাক, ডাক্তার লুতফুর এবং বিভিন্ন বন্ধু বান্ধবদের সাহায্য ও প্রার্থনা করি। কিছু কিছু ফস্টার হোমের সাথে যোগাযোগ করি, তাদের কারো ক্যাপাসিটি ছিলো না দুটো বেড়ালকে নেয়ার। আর কেউ কেউ অতিরিক্ত বেশী চার্জ করছিলো, দুজনের জন্যে দিনে এক হাজার টাকা করে!

এই সময়ই আমার ব্যাংক এর এটিএম কার্ড হাড়িয়ে ফেলেছি, চেক বই এর পাতা শেষ। গোল্ড এর দোকান সব বন্ধ। হাতে কোন ক্যাশ ছিলো না। কারো সহায়তা না পেয়ে আমি অবশেষে এক জোড়া স্বর্ণের কানের দুল দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ফেইসবুকের বিভিন্ন গ্রুপে পোস্ট দেয়া শুরু করলাম (২৩ মে, ২০২০ তারিখে)। স্বর্ণের কানের দুলের কথা এবং একটি বেদেশি বেড়াল (মলি মিক্সড পার্সিয়ান ছিল) এর ছবি দেখে আমার পোস্টটি অনেকের নজরে আসে। 

একটি গ্রুপে আমার পোস্টটি দেখে অথৈ নামের একটি মেয়ে তাদের নেয়ার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করে। অনেক এর সাথে কথা বলার পর মেয়েটিকে আমার ভালো মনে হয়েছিলো। কিন্তু বেড়াল দুটোকে নেয়ার পর দিনই সে তাদের ফেরত দিতে চাইলে আমি পুনরায় বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানে যোগাযোগ করি। সিএফপির এক ডাক্তারের পরামর্শে আমি রেস্কিউ শেল্টার ‘কালুয়াস হোমস’ (Dhanmomdi River View model town. Road #19.Boroikhali, West Dhanmondi, Dhaka 1209, Phone: 01736-460557)-এর নাইম ইবনে ইসলাম, যাকে সবাই আদি গুরু হিসেবে চেনে, তার কাছে অথৈকে বলি হুলো মলি এবং তাদের জন্যে দেয়া সকল জিনিসপত্র দিয়ে আসতে (কানের দুল, ৬ কেজি উইস্কাস ড্রাই ফুড, ১০ কেজি লিটার, খেলনা, শ্যাম্পু, বিছানা, ইত্যাদি (দুই রিকশার মতন জিনিষ)। এই শেল্টারে যে টিনের ঘরে বেড়াল কুকুর এক সাথে থাকে, এবং এই শেল্টারের অব্যবস্থাপনা সম্পর্কে আমার কোন ধারনাই ছিল না। আদি গুরুর সাথে কথা বলে ভালই মনে হয়েছে, সে আমাকে আসস্থ করেছে যে হুলো মলি আমার থেকে তার কাছে বেশী ভালো থাকবে। এক পর্যায় তাকে আমি আমার একটা রুমের এসি দেয়ার কথাও বলি, যেন এসি রুমে থাকলে হুলো মলির কষ্ট কম হয়। আমার এক বান্ধবি তাকে তিন হাজার টাকাও বিকাশ করে। 

হুলো মলিকে শেল্টারে দিয়ে এসে অথৈ আমার সাথে খুব চেঁচামেচি শুরু করে দেয়। এই শেল্টারে আমার বেড়াল নিজের বোমি নয়, অন্যান্য প্রাণীদের বোমি খাবে। পাউরুটির উপর ফাঙ্গাস। আদি গুরুকে ফোন করার পর সে বলল এসব বাজে কথা, অথৈ কুকুর দেখে ভয় পেয়েছিল দেখে এসব আজেবাজে কথাবার্তা বলছিলো।   

এই শেল্টারের দুরবস্থা বর্ণনা করে আমার শুভাকাঙ্খী সেজে সারা শামস নামে একজনও (এসিএসবির অ্যাডমিন) বিড়ালগুলো সারা বিনতে জামানের বাসায় সরানোর ব্যবস্থা করতে বলে; তার কাছে জানতে পারলাম যে এখানে টিনের ঘরে প্রাণী গুলো থাকে, এখানে এসি লাগানোর সুযোগ নেই, এসি নিয়ে আদি গুরু ওটা বিক্রি করে দিবে। আমি আদি গুরুর সাথে যোগাযোগ রাখার চেষ্টা করি এবং বিড়াল দুটিকে অন্যত্র সরানোর কথা তাকে বললাম। কিন্তু আদি গুরু এখন কোনভাবেই আমার বিড়াল ছাড়তে রাজী হলো না। বলল আমি তাদের সারেন্ডার করেছি, এখন আর আমার তাদের উপর কোন অধিকার নেই।সারা সামস ও প্রথমে হুলো মলিকে উদ্ধার করবে বললেও পরে হঠাৎ আমার কোন কথায় তার মেজাজ খারাপ হয়ে গেলো (আমার তখন হাত-পা কাঁপছিল, কি বলেছিলাম তাও মনে নেই)। এরপর আদি গুরু এবং সারা শামস - দুইজনই আমার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দিলো।

১৩ই জুন হঠাৎ সারা শামস আমাকে ফোন করে জানালো যে, কালুয়াস হোমস-এর বিরুদ্ধে নানাবিধ অভিযোগের ভিত্তিতে বিড়াল-কুকুর রক্ষাকারী আরেক গ্রুপ ‘প’ শেল্টারটি রেইড করেছে এবং আমার বিদেশী বেড়ালটি নাহার চাকলাদার নামের এক ব্যক্তির কাছে এবং দেশী বেড়ালটি নাইম ইবনে ইসলামের কোন বন্ধুর বাসায়। কালুয়াস হোমস-এর কথা আরও জানতে পারবেন নীচের দু'টো লিংকে-




নাহার চাকলাদারকে ফোন করার পর তিনি আমাকে বললেন যে, মলির অবস্থা খুব খারাপ। আমার কান্নাকাটি শুনে সারা শামস দেশী বেড়াল হুলোকেও নাহার চাকলাদার এর বাসায় পাঠানোর ব্যবস্থা করে। পলাতক নাইম  ইসলাম তাকে এ ব্যাপারে সাহায্য করে। আর এই আধ মরা বেড়ালের ব্যবস্থা করে এসিএসবি গ্রুপ অনেক মহৎ একটি কাজ করে ফেলেছে, যেখানে তাদের কাছে আমি এক মাস আগে সাহায্য চেয়েছিলাম। যেখানে তারা ভালো করে জানতো কালুয়াস হোমস এর অবস্থা কতটা খারাপ। এখন পুচি ফ্যামিলির বেড়ালের দুঃখে তারা কুমিরের কান্না কাঁদে!! নীচের ভিডিওটিতে শুধু দেখুন মলির কি অবস্থা হয়েছিলো, কি কষ্ট সে পেয়েছিলো!! 


'প' এর অ্যাডমিন এবং ফাউন্ডার রাকিবুল হক এমিলকে মেসেঞ্জারে জিজ্ঞাসা করার পর তিনিও নাহার চাকলাদার এর পক্ষে ভালো কিছু বলেনি।

নাহার চাকলাদারের সাথে আমার পিতা জনাব মহিউদ্দিন আহমদ, সাবেক সচিব, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও কথা বলেছেন। বিড়াল লালন-পালন করার ব্যাপারে নাহার চাকলাদারের কোন অভিজ্ঞতা না থাকার সংবাদ দিয়ে সারা শামস আমাকে ফোন করতে থাকে। নাহার চাকলাদারও বেড়ালের চিকিৎসার জন্যে বারবার টাকা চাচ্ছিলেন। কিন্তু এদের পারষ্পরিক উদ্ভট আচরণে আমি কারো কথায় আস্থা রাখতে পারছিলাম না।

সারা শামস আমাকে জানালো হুলো এবং মলিকে সারা বিনতে জামান নামের একজনের বাসায় পাঠাবে। কিন্তু শুনেছিলাম যে সে একজন ব্রিডার। তাও যেহেতু মলি স্পে করা ছিল, আমি অবশেষে আমার বেড়াল দুটোকে সারা বিনতে জামানের কাছে ভালো থাকবে ভেবে সেখানে বেড়াল দুটোকে নিয়ে যাওয়ার জন্য সারা শামসকে অনুরোধ করি। তবে আমার বোঝা উচিৎ ছিলো - একজন ব্রিডার এবং তার সংস্পর্শের  মানুষই বা আর কতটা ভালো হতে পারে?

এই অবস্থায় এসিএসবি গ্রুপের অ্যাডমিন হাবিব আহমেদ, ইসলামী ব্যাংক এর একজন কর্মী, হুলো আর মলিকে সারা বিনতে জামান এর বাসায় রাখার কথা আমাকে জানালেও প্রকৃতপক্ষে বিড়াল দুটিকে নিয়ে যাওয়া হয় অঙ্কিতা চৈতির বাসায়। তার কথা আমাকে না বলায় আমি সারা বিনতে জামানের বাসায় ডাক্তার সাদ্দামের দেয়া মলির জন্যে ইনজেকশান, ঔষধ, তিন কেজি ড্রাই ফুড, দুটি খাবার পাউচ এবং লিটার কিনে পাঠাই। পরে শুনেছি যে, পাউচ দুটি অঙ্কিতার বাসায় পৌঁছে দেয়া হয়নি। এটা শুনে আমি খুবই অবাক হয়েছিলাম! আরও বলেছিলো, কাছেই তার বোনের বাসায় তাদের রাখতে দিয়েছে। পরে অঙ্কিতা একদিন হাসতে হাসতে আমাকে বলল, আমি হিন্দু, আমি উনার বোন হবো কিভাবে?
নাহার চাকলাদারকে ব্লেইম করে সারা বিনতে জামান এর নীচের কমেনটি দেখে আমি 

স্বস্তি পাই যে মলি ঠিক হয়ে যাবে। আমাকে একটি ভিডিও পাঠানো হয় যেখানে মলি খেলছে। কিন্তু পাঠানো ছবি গুলোতে হুলো মলির ড্রাই নোউজ, আর মলির চোখের পুজ দেখলে চিন্তা হত। অঙ্কিতার কাছে পরে আরও শুনেছি, যে হুলোর গলায় মারাত্মক ঘা ছিলো। রীতিমতো গন্ধ বের হতো। আদি গুরু দাবী করে সে শেল্টারে থাকতে হুলো আর মলি খুব ভালো ছিলো। কিন্তু শেল্টারে আদি গুরু পালিয়ে যাওয়ার পর হুলো ছিলো চারদিন। এই চারদিনে এমন ঘা হতে পারেনা। 



হুলো মলিকে অঙ্কিতার বাসায় দিয়ে আসার পর সারা শামস আমাকে প্রায় সময় ফোন এবং টেক্সট করে তাদের প্রানি কল্যাণ বিষয় তাদের বিভিন্ন পদক্ষেপকে সমর্থন এবং সাহায্য করতে বলে।


 প (People for Animal Welfare)-এর ফাউন্ডার রাকিবুল হক এমিল ও আমাকে অনুরোধ করেন থানায় নাইম ইসলাম (আদি গুরু)-এর নামে কমপ্লেইন করতে। তবে আমার দুটো বেড়ালের দায়িত্ব তিনি নিতে পারবেন না বলে আমাকে জানিয়েছেন। এক সময় আমি এইসব বিভাজন বা দলাদলির কিছুই বুঝতে পারছিলাম না বলে আমি তাদের কথায় সায় দেয়া বন্ধ করে দিয়েছি।

ইত্যবসরে আমার বিদেশি বিড়ালটির অবস্থা খারাপ মর্মে অঙ্কিতা চৈতি আমাকে জানালো (৯ জুলাই, ২০২০)। ডাক্তার সিয়ামাককে ফোন করার পর তিনি আমাকে বললেন, এ দেশে আসলেও কোন প্রপার ভেট নেই। সবাই পশু হাসপাতালের প্রেসক্রিপশানে চলে। অঙ্কিতাকে বলার পর সেও একমত হয় আমার সাথে। তখন আমি অঙ্কিতাকে ডাক্তার সিয়ামকের কাছে চিকিৎসার জন্য তার কাছে মলিকে নিইয়ে যেতে অনুরোধ করি এবং চিকিৎসা খরচ বাবত ৩ হাজার টাকা বিকাশ করে ডাক্তার সিয়ামাকের কাছে পাঠিয়ে দিই। কিন্তু মলি বাঁচেনি।খবরটি পেয়ে আমার অবস্থা খুব খারাপ হয়ে গিয়েছিলো। এবং লকডাউনের কারনে কারো পক্ষে সম্ভব হয়নি তাকে দেখতে আমাকে নিয়ে যেতে। মলিকে আর দেখা হলো না।  অথৈ মেয়েটিকে দেয়ার সময় কল্পনাও করতে পারিনি, মলিকে আর দেখবো না। কল্পনাও করতে পারিনি!  

সবচেয়ে দুঃখের বিষয় হচ্ছে যে, কালুয়াস হোমসকে যারা রেইড করেছে, তারাও ভন্ড, প্রতারক! 

প্রাণী প্রেমের নামে 'প', সিএফপি, এসিএসবি, এএলবি, এরা সবাই করে যাচ্ছে নাটক। ফান্ড এর  আশায়,  তারাও চাঁদাবাজির আশায়। 

তাদের কাউকে টাকা বিকাশ করবেন না প্লিজ। দয়া করে সম্ভব হলে কুকুর-বেড়ালদের নিজে গিয়ে খাইয়ে আসুন, সিসি টিভি ক্যামেরা নিজে গিয়ে লাগিয়ে দিয়ে  আসুন। 

এই করোনা দুর্যোগের সময় তাদের সকলের এখন অবস্থা খুব করুন। তাই প্রাণী কল্যাণ এর নামে উনারা সবাই ঝাপিয়ে পড়ছেন, আর চাচ্ছেন সবার থেকে চাঁদা! হুলো মলিকে কালুয়াস হোমস এ দেয়ার পর যখন আদি গুরু আমার বেড়াল ছাড়তে রাজী হচ্ছিলো না, ডাক্তার সিয়ামাককে জানালাম। তিনি আমাকে বললেন, "Don't trust them, don't give them any more money. It will not be used for your cats. This is a new business". 


নাইম ইসলাম, সারা শামস, সারা বিনতে জামান, হাবিব আহমেদ বা রাকিবুল হক এমিল – এদের কারো সাথে আমি ব্যক্তিগতভাবে পরিচিত নই, কাউকে আমি চিনিও না। রেস্কিউ শেল্টার ‘কালুয়াস হোমস’-এর অব্যবস্থাপনা, এই শেল্টারটি কেন ‘প’-এর পক্ষ থেকে দখল করা হলো, দুই গ্রুপের দলাদলিতে আমার বিড়ালটি অযত্নে, অবহেলায় মারা গেল, শুনেছি আরও ৬৫ প্রাণী এই সময় মারা গিয়েছিলো - এর একটি সুষ্ট তদন্ত ও বিচার হওয়া উচিৎ। 

আদি গুরু খুব সম্ভবত “কালুয়াস হোমস” এ ফিরে এসেছে। তাহলে ‘প’ কেন এই শেল্টার হোমটিকে রেইড করলো? এখন যারা “কালুয়াস হোমস” এর দায়িত্ব নিয়েছেন, তাদেরই বা উদ্দেশ্য কতটি প্রানির কল্যাণ?

মলির দেহকে সিয়ামাকের কাছ থেকে নিয়ে মাটি দেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে





মলির দেহকে সিয়ামাকের কাছ থেকে নিয়ে মাটি দেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে

কেবল যারা প্রানি প্রেমি, এবং ছোট বেলা থেকে একটি বেড়াল বা কুকুরকে সাড়ে তিন বছর ধরে নিজের সন্তানের মতন বড় করে এসেছেন, তারাই শুধু বুঝতে পারবেন - এমন অবহেলায়, অযত্নে, না খেয়ে, আপনার সাধ্য চেষ্টা করার পরও - আপনার সন্তানের মতন প্রানিটি মারা গেলে ব্যাপারটি মেনে নেয়াটি কতটা কষ্টকর! যার যায়, শুধু সেই বোঝে!

মলি মারা যাওয়ার আগের ডাক্তার সিয়ামাক আমাকে বলে দিয়েছিলেন, মলির বাঁচার ৫০-৫০ চান্স। সেই সময় থেকে সারা শামস আমাকে এই ধরনের টেক্সট করে যাচ্ছিলো! কারণ আমি তাদের ব্লাডি হিপোক্রেইট ডেকেছিলাম। এক তো আমি শোকে ছিলাম। দ্বিতীয়ত, আমি বুঝতে পারছিলাম যে সারা শামস আদি গুরুকে আবার তার শেল্টারে ফিরে আসতে সাহায্য করছিলো, যেই আদি গুরুর কারণে মলির এই অবস্থা হলো! তাদের চরিত্র কিছুদিন পরেই বুঝতে পারছিলাম। যেখানে শেল্টার রেইড হওয়ার পর প্রাণীরা মারা যাচ্ছিলো, সেই অবস্থায় তারা লাইভে এসে একজন আরেকজনকে লিপস্টিক দেয়া নিয়ে হাসাহাসি করেছে। আদি গুরুর চুরি করার স্বভাব নিয়ে হাসাহাসি করছে। এটা কিভাবে কোন হাস্যকর বিষয় হয়?     

03-April-2021 খবর পেলাম আমার হুলো ও আর বেঁচে নেই। গত বছর ১১ জুলাই মলি মারা গিয়েছিলো। হুলো কার কাছে ছিলো জানিনা। কিভাবে মারা গেলো জানিনা। কবে মারা গিয়েছে তাও জানি না। তাকে কি মাটি দেয়া হয়েছিলো, না ডাস্টবিনে ফেলে দেয়া হয়েছিলো তাও জানি না। 

হুলো কোথায় আছে যতদিন জানতাম, আমি হুলোর খাবার, লিটার, এবং সে যার কাছে ছিলো, অঙ্কিতা, তার জন্যে এটা সেটা পাঠিয়েছি। অনেকবার বিকাশ নাম্বার চেয়েছি ফস্টার চার্জ পাঠানোর জন্যে, কিন্তু অঙ্কিতা তার বিকাশ নাম্বার আমাকে দেয়নি। একবার একটি অন্ধ কুকুরের জন্যে সাহায্য চেয়েছিলো, মাসের শেষ দেখে ৫০০ টাকার বেশী দিতে পারিনি, না হলে সেই কুকুরের সমস্ত চিকিৎসার খরচ আমি দিতাম বলে কথা দিয়েছিলাম। 

অঙ্কিতাকে বহুবার আমি স্পষ্ট করে বলে দিয়েছিলাম, হুলোকে ও রাখতে না চাইলে কোন ফস্টার হোমে দিয়ে আসতে, কিন্তু হাবিবদের দলের কারো কাছে যেন কোন অবস্থাতেই হুলোকে না দেয়। আমাকে অঙ্কিতা বলছিলো যে হাবিব এর গ্যাং এর লোকজন তাকে বারবার বলছিলো হুলোকে আর না রাখতে। বারবার অঙ্কিতাকে ভয় দেখাচ্ছিলো যে হুলোর কিছু হলে আমি অঙ্কিতার সর্বনাশ করে ফেলবো। আমি তাকে আসস্থ করার চেষ্টা করেছি, যে মলি মারা যাওয়ার পরে কি আমি তাকে খারাপ কোন কথা বলেছি? মলির অবস্থা কালুয়াস হোমস এই খারাপ হয়ে গিয়েছিলো। অঙ্কিতা হুলোর ভালো যত্ন নিচ্ছিলো, আমাকে আপডেট দিচ্ছিলো, এরপরেও যদি কোন দুর্ঘটনা ঘটে যায়, আমি তাকে দোষারোপ করবো না। কারণ সে হুলোকে আসলেও খুব আদর করতো।    

অঙ্কিতার সাথে আমার সম্পর্ক ভালো ছিলো। ওকে আমি বেশ পছন্দ করতাম। হুলোর পাগলা কান্ডকারখানা নিয়ে হাসাহাসি করতাম। সেও হাবিব এর গ্যাং এর সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছিলো বলে আমাকে বলে। আমাকে আরও বলে যে - তারা সবার কাছে আমার সম্পর্কে এমন একটা ধারণা দিয়েছে, যে এখন সব ফস্টার হোম গুলো আমাকে ভয় পায়, আমার বেড়াল রাখবে না। 

কিন্তু হাবিব এর গ্যাং সার্থক হয় অঙ্কিতা আর আমার সম্পর্ক খারাপ করে দিতে। তারা আমার সম্পর্কে বানোয়াট কথাবার্তা অঙ্কিতাকে বলা শুরু করে। একদিন বলল আমার মা নাকি বলেছে অঙ্কিতাকে আমি ছয় হাজার টাকা দিয়েছি। আমার বাবাকে হাবিব আহমেদ আর সারা শামস ফোন দেয়, আমার পরিবার ও এসব বেড়ালের ঝামেলা নিয়ে আমার উপর খুব বিরক্ত হয়ে যায়। ওইদিন আবার আমার একটা  অনলাইন প্রেসেন্টেশান ছিলো। এক সময় মেজাজ খারাপ করে আমি অঙ্কিতাকে বললাম, লাগবে না আর আমার হুলোর খবর। বলে তাকে ব্লক করে দিয়েছিলাম। মাথা ঠান্ডা হওয়ার পর ভাবলাম, ছি ছি, এটা আমি কি করলাম। প্রেসেন্টেশান শেষ হওয়ার সাথে সাথেই আই অঙ্কিতাকে আনব্লক করে অনেক সরি বললাম। কিন্তু আমি কল্পনাও করতে পারিনি যে অঙ্কিতা সারা শামস এর কাছে আমার হুলোকে দিয়ে আসবে। কারণ তারও হুলোর প্রতি অনেক মায়া ছিলো। আমি কল্পনাও করতে পারিনি!! 

সারা শামস এর কাছে হুলো যাওয়ার পরেই সে শুরু করে দিলো তার পুরনো খেলা। হুলোকে ফেরত নিতে বলতো দিনে রাতে। আমি তখন অফিসে যেতাম সকালে, ফিরতাম সন্ধার পর। হুলোকে আমার কাছে নিয়ে আসলে আমি হয়ে যেতাম একজন অ্যাবিউজার। পরে তাকে বললাম একটা ফস্টার হোমে হুলোকে রাখতে, আমি মাসে তিন হাজার টাকা এবং খাবার আর লিটার পাঠাবো। 

কিন্তু এই ব্যক্তি আমাকে শর্ত দিলো, যে কার কাছে দিবে সেটা সে আমাকে জানাবে না। মাসে কয়কবার আপডেট দিবে। কারণ সব ফস্টার হোম আমাকে ভয় পায়। আমি এই শর্তে রাজী হইনি। তাহলে আমিই খুঁজে দেখি কোন ফস্টার হোম পাই কিনা। বা কেউ হুলোকে দত্তক নিবে কিনা। তাই ডিএসডি গ্রুপে একটা পোস্ট দেই, কেউ হুলোকে ফস্টার বা দত্তক নিতে আগ্রহি কিনা। 

ওই পোস্টে সারা শামস তার গ্যাং নিয়ে কমেন্ট করা শুরু করলো। সে আমার বেড়াল আমাকে দিবে না। ছয় মাস ধরে নাকি সে আমার বেড়ালের দেখাশোনা করছে এবং আমি আমার আরেকটি বেড়াল মেরে ফেলেছি। তাই সে হুলোকে দত্তক দিয়ে দিয়ে। এক সময় গ্রুপের অ্যাডমিন এসে পোস্ট এ কমেন্টিং বন্ধ করে দিলো। সেই অ্যাডমিন আমার এক ক্লাস ফ্রেন্ড এর এক্স ওয়াইফ, আমার উপর আগে থেকে ক্ষেপা ছিলো একটি বিশেষ কারণে। প্রচন্ড মেজাজ খারাপ করে আমি সারা শামসকে ইনবক্স করলাম যে সে একটা ৮০ কেজির মহিলা, তার স্বামী কিভাবে তার কাছে যায় আমি কল্পনা করতে পারি না। 

এর মধ্যেই লকডাউন তুলে ফেলা হল, আমার কাজের লোক ফেরত আসলো। আমি এবার সারা শামস এর কাছে হুলোকে ফেরত ই চাইলাম। ৮০ কেজি ডাকাতে সরি বললাম। আমার আম্মাও তাকে খুব অনুরোধ করলো হুলোকে ফিরিয়ে দিতে। তখনি সারা শামস তার গ্রুপে হুলোকে একজনার কাছে দত্তক দেয়ার কথা বলে "হুলো কেইস ক্লোসড" অ্যানাউন্স করে দিলো। 



এরপর থেকে হুলোকে লোকেইট করার সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলাম, বারবার আমাকে ফিরিয়ে দেয়ার অনুরোধ করছিলাম। সে কখনও অসুস্থ হলে তাকে যেন শেষ একবার অন্তত আমাকে দেখতে দেয়া হয় - অনেক অনুরোধ করেছিলাম। 


প্রচুর হয়রানী সহ্য করতে হয়েছে যতবারই হুলোর সন্ধান চেয়ে কোন পোস্ট করেছি, ফেইসবুকে সাহায্য চেয়েছি। 









হুলোকে ফিরে পাওয়ার আর কোন আশা নেই…এদের মনে কি আসলেও কোন দয়া মায়া আছে? একটি সাড়ে তিন বছর বয়সের বেড়াল আমার মারা গিয়েছে, কিভাবে পারলো আরো একটি বেড়াল বেড়াল এভাবে আমার থেকে গায়েবই করে দিতে?

এমনকি যেই সিআইডি অফিসারের সাহায্য চেয়েছিলাম হুলোকে উদ্ধার করে দেয়ার জন্যে, তিনিও হয়রানী করার চেষ্টা করেছেন। 


এই দুই ঘণ্টার ফোন আলাপে দেশের টপ প্রাণী প্রেমীদের নাম উল্লেখ্য আছে।  (17-01-2021, 11:17PM). 

প্রাণী হত্যা করলে উনাদের বিচার হয়না কারণ উনারা বিশাল সিন্ডিকেইট। নিজেরা নিজেরা ঝগড়া বিবেদ করলেও প্রয়োজনে সবাই এক হয়ে যান। ডিবি, সিআইডি, থানা - সব খানে তাদের লোক আছে। তাই উনারা আইনের ঊর্ধ্বে। উনাদের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ নেয়াটাও কঠিন।


0:01:22 - Human Rights Activist Sayeedul Haq Sayeed 0:05:11 - Habib Ahmad (Works for Islami Bank) 0:06:40 - Ruksath Haq 0:07:44 - Nahar Chakladar 0:12:43 - Arafath Ashiq 0:14:10 - Ankita Chayti 0:15:41 - Shams-E-Tabriz 0:17:51 - Arafath Ashiq 0:20:29 - Human Rights Activist Sayeedul Haq Sayeed 0:38:55 - ALB Shelter, ACSB, Dipanwita Ridi, Sarah Binte Zaman, Farzana Leo 0:40:45 - Rakibul Haq Emil (Founder, PAW) 0:41:52 - Rummam 0:42:32 - Habib Ahmad (Works for Islami Bank) 1:01:38 - Ankita Chayti's foster home 1:03:19 - ALB Shelter, ACSB, Dipanwita Ridi, Sarah Binte Zaman, Farzana Leo 1:04:05 - Dipanwita Ridi 1:04:43 - Ruksath Haq 1:06:50 - Sarah Binte Zaman (Founder & MD at Paws N Claws) 1:10:10 - Sarah Shams (Admin, ACSB) 1:22:16 - Ankita Chayti 1:22:50 - Human Rights Activist Sayeedul Haq Sayeed 1:27:11 - Rakibul Haq Emil (Founder, PAW) 1:33:40 - Nona Ahmed 1:42:13 - Arafath Ashiq 1:51:43 - Animal Care Society Bangladesh (ACSB)

মন্তব্যসমূহ

  1. শুনেন আপু, আমি আপনাকে চিনিও না। আপনি আমাকে নিয়ে লিখলেন কোন কারনে? আর আপনি আমার কোন রেজিষ্ট্রেশন চান? আমাদের এ এল বি বাংলাদেশের প্রথম এনিমেল শেল্টার হিসাবে রেজিষ্ট্রেশন করা। যদি জানা না থাকে তো জেনে নিয়েন? আপনার মলি কোথায় ছিল কার কাছে ছিল এসব আমি জানি না। শেল্টারের মনিটরিং এর দায়িত্বে যখন আসি তখন একটা বিড়ালও ছিল না শেল্টারে, এখনো নাই।
    আপনার মলিকে আমি চিনি না। আমাকে কোন আইনের আওতায় আনতে চান? কারাগারেও পাঠাতে চান? প্রানী কল্যান নিয়ে কাজ করি আর এই আইন সম্পর্কে আমরা জানি না ভাবেন?
    আপনি যাই লেখেন না লেখেন জেনে লিখলে ভাল হয়। আপনি কাউকে কোন কারনে হ্যারাস করতে পারেন না। বোঝা গেল?

    উত্তরমুছুন
  2. Seriously ? Kaner dul to apni nijei offer Korsen keu ki churi kore nie ashche? Nijer Biral euthanaise kore mere felben bole akhon nijer blog a Maya kanna kantesen? You are a hypocrite. Ekhane joto organization ar nam bolchen kono Proman chara shobei mile apnar nam a defame ar case Kora ucuit.

    উত্তরমুছুন
  3. You are such a hypocrite. You accused so many good hearted animal lovers here who only helped you. Some of them fostered your cats for free. You not only lack gratefulness, you lack the minimum humanity as well. You wanted to euthanaise your cats and now you are just gaining people's sympathy here with crocodile's tear and trying to defame these people. You seriously need to consult a professional psychiatrist woman!

    উত্তরমুছুন
  4. Listen Lady you are a huge liar.. I'll post every truth regarding you. What money are you talking about? Lojja howa uchit mittha bolte.Ami ekta poysha nei nai apnar biral rescue korar jonno neither did i take any gift jegula u kept on offering again and again. Such a hypocrite and okritoggo u are. I rescued ur cats free of cost andvhelped u in every possible way. FOR FRE..
    You want todonto na? Go file a case. Amio chai todonto hok so that khomotar arale thaka apnader moto hypocrite der expose kora jay. Ur father felt sorry for ur insolent behaviour oitar recording o ami police k dibo. How dare use my name in a public website without any valid proof?

    You were informed that ur cat is sick and suffering from separation depression but you did not bother to see her once. You were even offered that apnar biral apni rakhen kichudin since she's depressed abar diyen pore if u face problem.. You clearly said rastay chere dao. And now you are lying here. Wow...

    Ur own vet gave statement that u did not vaccinate ur cat.. Your cat died of cat flu. Tahole akhon toh apnar vet o mitthuk.. And i didnt call you regarding Molly u did. You begged me to rescue your cat. Alhamdulillah i kept all recordings egula ami nijei police k dibo to judge j what a liar and hypocrite you are.. People nedd to know how you are misusing your father's political power. You kept on blackmailing me saying u will commit suicide if ur cats are not rescued. You harassed me.. Ami ki apnar theke kichu niyechi that u are calling it a chadabaji? Recall you wanted to donate for a dog ami toh oitar jnno apnar donation neini. How can someone be so thankless. Apu May Allah bless u with hidayah. You need to practice well on ur ethics. You are the reason of ur cat's death. Because u did not vaccinate her properly according to ur vet. You should be ashamed. You killed your cat not us....Such a disgrace....

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. Why are you scared? So what ur address is known? Did we ever approach u on ur address? Come on don'tact silly. I have no personal issue with you so just stop being insecure. It's very unfortunate that Molly passed away. You can't blame other people for that. You know the cause too. And Hulo k niye ke blackmail korse? You were just asked to take ur cat back that's all.. No one wants to take responsibility of your cat because of your nature. So please just stop being irrelevant . If you dont want Hulo back shetao toh bolte hobe. Cz no one wants to keep ur cat. I was stupid that i helped u. Now ur threatening me . How nice is that?

      মুছুন
    2. And we dont work with funds so who cares if no funds come? Ur the sole example we are bearing all costs of both ur cats since last 1month. So funds loose korar bhoy amader dekhanor kono mane nai.. And i have no interested in harming you set that in ur mind. Ar threat toh ekbar o ami dei e nai u are the one doing so.

      মুছুন
  5. You were as usual illogical as always. The person who has Hulo will not keep him because she feels unsafe from you. And let me give you a kind reminder that I am the one who managed her i wonder how u forgot that. And i never requested u to watch my live u were the one who kept on insisting ' kokhon korba live ' ' ghumay jabo? ' etc etc.

    Anyways don't wanna reply yo ur unrealistic accusations and useless nagging. May Allah give you peace.
    It was my mistake doing u favours because not every dog is loyal and grateful and worthy of consideration. May Allah bless you with Hedayah and a better heart.

    উত্তরমুছুন

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

এই ব্লগটি থেকে জনপ্রিয় পোস্টগুলি

😍😍 পিক্সেলেন্ট ফটোগ্রাফি লকডাউন কন্টেস্ট 😍😍

স্মার্ট ফোনে ছবি তোলার জন্যে সবচেয়ে ভাল অ্যাপ । The Best Photo Apps for Your Smartphone